ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নেবার পর প্রথম থেকেই আমি বলে এসেছি যে আমাদের দেশের অনলাইন শপিং সাইটগুলোর কনটেন্ট এর দিকে নজর দিতে হবে। পন্যের বর্ণনা, ব্লগ, ফেইসবুক পেইজ ও গ্রুপে সক্রিয় অংশগ্রুহন, মিডিয়া পাবলিসিটি এসব লাগবেই। কোন পন্যের সার্চে গুগলে প্রথম দিকে থাকলে ভিজিটর ও বিক্রি বাড়বেই। আর মিডিয়াতে প্রেস রিলিজ পাঠানো দরকার অন্তত বছরে ৩-৪ বার। তাছাড়া আপনার ফেইসবুকের জন্যও মোটামুটি মানের কনটেন্ট দরকার। দেখা যায় যে একটা ছবি দিয়ে তারপর সেই পন্যের বিজ্ঞাপন ধাচের ৫-৬ বাক্য লিখে দিয়ে পেইজে পোস্ট দেন অনেকে। এতে করে খুব বেশি সাড়া পাওয়া যায় বলে আমার মনে হয়না।
হয়তো ভয় পাচ্ছেন যে কনটেন্ট এর জন্য বেতন দিয়ে কাউকে রাখতে হবে এবং সেই সামর্থ্য আপনার নেই। কিন্তু যারা লিখতে ভালবাসেন তাদের অনেকেই ফ্রিল্যান্স কাজ করতে পছন্দ চাকুরির থেকে। ৯-৫ টা অফিস করতে হবে না এজন্যই কিন্তু অনেকে লেখক বা কনটেন্ট রাইটার এর কাজকে বেছে নেন।
যা দরকার তাহল কিছু লেখক খুজে পাওয়া যারা ই-কমার্স সম্পর্কে জানেন এবং এ দিকে লিখতে পারবেন। এখন সেই লেখকরা যে ই-কমার্স নিয়ে জানে তা বুঝবেন কিভাবে? একটা সহজ উপায় হল তারা ই-কমার্স নিয়ে কত গুলো লেখা লিখেছে এবং কোথায় লিখেছে?
ই-ক্যাব ব্লগে কয়েকজন লিখেছেন ই-কমার্স নিয়ে এবং আমার মনে হয় যে সবার আগে তাদের কথা মাথায় রাখবেন। প্রতিটি লেখার নিচে লেখকের নাম ও ফেইসবুক লিংক দেয়া আছে।
আমি জানি যে আর ৩ মাস পর অনেক অনলাইন শপিং সাইট কনটেন্ট এর জন্য লোক খুজবেন এবং এদিকে অনেক কাজের সুযোগ সৃষ্টি হবে।
February 2015

অনলাইন শপিং সাইটগুলোর কনটেন্ট এর দিকে নজর দিতে হবে