আড়াই মাস আগে একটি স্বপ্ন নিয়ে সার্চ ইংলিশ গ্রুপের যাত্রা শুরু হয়েছিল- ভয়, লজ্জা আর সংকোচ বাদ দিয়ে আমরা ইংরেজি চর্চা করবো। ভুল শুদ্ধ নিয়ে মাথা ঘামাবো না। আমরা লিখে যাবো। আমি ঘোষণা দিলেই এমনটা হয়ে যাবে না। বরং অনেক মানুষকে এই নীতিতে বিশ্বাস করে এগিয়ে আসতে হবে। আপনারা অনেকে এগিয়ে এসেছেন বলেই তা হয়েছে।
এখন অনেকের কাছেই একদিনে ৫০ টি পোস্টে কমেন্ট করা কোন ব্যপার নয়। আসলেই ব্যপার নয়। কেউ আর ইংরেজিতে লিখতে ভয় পান না, লজ্জা পান না। এটির অনেক দরকার ছিল। কারণ আপনি ভয় থেকে মুক্ত না হলে কোন কিছুতে ভাল করতে পারবেন না, প্রশ্নই আসে না।
শিক্ষা, চাকুরি, ফ্রিল্যান্সিং, ব্যবসা- জীবনের প্রতিটি ধাপে প্রতি পদে পদে আমাদের ইংরেজির দরকার হয়। কিন্তু সেই ইংরেজি নিয়ে ভয় বেশি আমাদের। গ্রুপে অনেকেই লিখেছেন যে তারা একটি কমেন্ট লেখারও সাহস করতেন না। কেন? কারণ ভয় ছিল যদি ভুল হয়, যদি অন্যরা উপহাস করে ফালতু কথা বলে।
মজার ব্যপার হল আপনি যদি চেষ্টা না করেন, না লেখেন তাহলে কিভাবে আপনি ইংরেজি লিখতে পারবেন? এই গ্রুপে আমি কিন্তু ইংরেজি শেখা নিয়ে তেমন পোস্ট দেই নি। বরং বারবার প্রতিদিন বলার চেষ্টা করেছি ভয়, লজ্জা, সংকোচ ঝেড়ে ফেলুন এবং লেখা শুরু করে দিন।
বারবার বলেছি কমেন্ট করুন। এতে করে আপনারা অনেক পোস্ট পড়েছেন। আপনাদের মতই সাধারণ মানুষের পোস্ট যারা ইংরেজিতে দুর্বল। তাদের পোস্ট পড়ে আমরা ফালতু কথা না বলে মজা পাই কেন? কারণ আমি বারবার বলেছি আমরা হয়তো ইংরেজিতে দুর্বল হতে পারি, কাঁচা হতে পারি কিন্তু স্টুপিড বা গাধা নই। আমরা অনেক কিছু জানি, অনেক কিছু পারি এবং তাই আমরা সার্চ ইংলিশ গ্রুপে তুলে ধরছি।
আমার সবচেয়ে বড় লাভ হচ্ছে এসব কথা ছিল আমার থিউরি- আপনারা তা প্রমান করে দেখিয়েছেন। আপনারা ভয় না পেয়ে, লজ্জা আর সংকোচ বাদ দিয়ে কমেন্টের পর কমেন্ট করে গেছেন। আর আপনাদের পোস্ট এবং কমেন্ট সাক্ষ্য দিচ্ছে যে আমরা কেউ বোকা নই, গাধা নই। আমরা পৃথিবীর অনেক বিষয় সম্পর্কে অনেক কিছু জানি। কেউ কম জানি, কেউ বেশি জানি।
আমার আরেকটা থিউরি হল সার্চ ইংলিশ গ্রুপে যেই নিয়মিত এক বছর সময় দেবে তার ইংরেজিতে দক্ষতা অনেক বৃদ্ধি পাবে। পরশু দিন মানে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে এই বিশ্বাস নিয়ে আমি কাজ শুরু করেছি। প্রতি এক মাস পর পর নতুন কিছু করবো আমরা। নতুন যারা তাদের ভয় পাবার কিছু নেই কারণ আমরা সব কিছু ওয়েবসাইটে রেখে দেব যাতে করে আপনারা জানতে পারেন কি করতে হবে।
যে স্বপ্ন আর বিশ্বাসের জন্য দিন রাত সময় দিয়েছি তা বাস্তবে পরিণত হতে দেখে অনেক ভাল লাগে। আশা করি আপনাদেরও লাগবে। কারণ আমার লাভ তখনই হবে যখন আপনারা ইংরেজিতে দক্ষ হতে পারবেন।

আমার সবচেয়ে বড় লাভ