২১ ফেব্রুয়ারি এলেই ফেইসবুক ফিডে কিছু লোক শুধু চারদিকে হিন্দি গান বাজছে তা শুনতে পান। এ নিয়ে তাদের মনে দুঃখের সীমা নেই। পাশের বাসার কেউ একজন হিন্দি গান শুনছে, রাস্তায় কোন দোকানে হিন্দি গান বাজছে, কোন বিয়ের অনুষ্ঠানে বা পার্টিতে হিন্দি গান ছেড়ে কিছু লোক হৈ হুল্লোড় করছে- এসব নিয়ে কত দুঃখ, কত সমালোচনা আর হাহাকার। আমি নিজেও তাদের সঙ্গে একমত এবং খারাপ যে লাগেনা তা অস্বীকার করবো না। কিন্তু তাদের একটা জিনিস আমার ভাল লাগেনা। দুই দশ বা দুই বিশ হাজার লোক হিন্দি গান শুনে বলে কেন আমাদের ভাষা আন্দোলন ব্যর্থ হবে?
আমি গর্বিত ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারির আন্দোলন ও শহীদদের আত্বত্যাগ এখন সারা বিশ্বে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালিত হয়। তার মানে আমরা কিছু একটা করতে পেরেছি যা পৃথিবীর সব দেশ স্বীকার করে নিয়েছে। ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে আমাদের যে অর্জন তা ২ কোটি লোক হিন্দি গান শুনলেও ম্লান হবে না। আমি নিজে ইংরেজি নিয়ে লেখাপড়া করেছি এবং পেটের দায়ে মূলত ইংরেজি ভাষাতে কাজ করি।
এমন এক সেক্টরের নেতৃত্ব দিচ্ছি যেখানে প্রায় ৯৯% ই-কমার্স ওয়েবসাইটের কনটেন্ট ইংরেজি ভাষাতে। তারপরও আমি বাংলাতেই সব পোস্ট দেই নিজের ওয়ালে, আমাদের ফেইসবুক গ্রুপে ও পেইজে এবং ব্লগে। ইংরেজি হরফে না লিখে বাংলাতেই লিখি।
বাংলা ভাষার ব্যবহার বাড়াতে হবে একথা বলতে পয়সা লাগে না। তবে এর জন্য দরকার বাংলা ভাষার এক বড় বাজার সৃষ্টি করার। বাংলা বই, বাংলা গান, বাংলা নাটক, সিনেমা কেনার কোন বিকল্প নেই। ৫-৬ কোটি লোক মিলে এসব কেনার জন্য সামান্য টাকা প্রতি সপ্তাহে ব্যয় করলেও এ দিকে বিশাল বাজার তৈরি হবে, হাজার হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে, প্রবাসি বাংলাদেশীরা যে সব দেশে আছে সেখানে আমরা রপ্তানি করতে পারবো।
এজন্য আমাদের অনেককে কাজ করতে হবে, চেষ্টা করতে হবে এবং বাংলা ভাষার পন্য কিনতে হবে। কে হিন্দি গান শুনল বা বাজাল সেদিকে হা হুতাশ না করে চলুন কালকে ১ টা বাংলা বই কিনি।
February 2015

আমি বাংলাতেই সব পোস্ট দেই