ই-ক্যাবের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয় ২০১৪ সালের ৮ নভেম্বর থেকে। আমি ২০১৪ সালের ১ নভেম্বর থেকে ফেইসবুকে এমন খেয়ে না খেয়ে দিন রাত একটিভ। মানে এ মাস শেষে আমার ২ বছর হয়ে যাবে। ই-ক্যাবের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবার পর শুরু হয়ে গেল নানা রকম আক্রমন। কেন আলাদা অ্যাসোসিয়েশান- কয়টি ই-কমার্স কোম্পানি আছে যে অ্যাসোসিয়েশান করতে হবে। বাংলাদেশে ১০ বছরেও ই-কমার্স এর মার্কেট হবে না।
সরকারের রেজিস্ট্রেশন পেতে ৮ মাস লেগেছিল- এই ৮ মাস আবার বলা হত ই-ক্যাব ভুয়া সংগঠন এবং কোন দিন রেজিস্ট্রেশন পাবো না। রেজিস্ট্রেশন পাবার পর এবার শুরু হল ই-ক্যাবে কোন বড় কোম্পানি নেই। ই-ক্যাব কেন বড় বড় গ্রুপ অব কোম্পানিজ গুলোকে ই-কমার্সে আনতে পারে না। তাই ই-ক্যাবের কোন মুল্য নেই।
এ বছরের জানুয়ারি মাসে একটি অনলাইন শপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমি আমার বক্তব্যে মাননীয় আইসিটি প্রতিমন্ত্রীকে ই-কমার্স পলিসির ব্যপারে অনুরোধ জানালে তিনি তৎক্ষণাৎ এ ব্যপারে ঘোষণা দেন এবং ই-ক্যাবকে তা করার দায়িত্ব দেন। এর রিপোর্ট ডেইলি স্টারে ছাপা হয়। এবার শুরু হল নতুন প্রচারণা। ই-কমার্স নতুন ইন্ডাস্ট্রি তাই নীতিমালার নামে এর বিকাশের পথ রুদ্ধ করার চক্রান্ত করছে ই-ক্যাব।
মজার ব্যপার হল ই-ক্যাব কেন ই-কমার্সে বড় বিনিয়োগ আনতে পারছে না এই ধরনের ফালতু কথা শুনতে হয়েছে। এরপর আবার উল্টা শুনতে হল গ্রামীণ ফোন, বাংলা লিঙ্ক কেন ই-কমার্সে নামছে। ই-ক্যাব কেন তাদের ঠেকাচ্ছে না।
এবার আলিবাবার পালা। একদল বলছে আসল আলিবাবা বাংলাদেশে আসে নি, নকল আলিবাবা। আরেকদল বলছে ই-ক্যাব কেন আলিবাবাকে ঠেকাচ্ছে না?
প্রথম দিকে এসব উল্টা পাল্টা কথাতে অনেক বিরক্ত হতাম, রাগ হত। তিন মাস আগেও এই গ্রুপে বা ফেইসবুকে পোস্ট আসতো ই-ক্যাবে বড় কোম্পানি নেই কেন, তার মানে ই-ক্যাব ফালতু। আর এখন বড় বড় কোম্পানিকে কেন ই-ক্যাব প্রতিহত করছে না।
এখন আর বিরক্ত হই না, রাগ করি না। কারণ ই-কমার্স নিয়ে ই-ক্যাব আর আমরা প্রতিদিন চেষ্টা করি, কাজ করি, করে যাবো। এজন্যই ই-ক্যাব, এজন্যই ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান। ২০১৬ সালের এখনও প্রায় তিন মাস বাকি। ২০১৭ সাল হবে ই-ক্যাবের জন্য দারুন এক বছর। অনেক বড় বড় কাজ করার স্বপ্ন দেখছি আমরা। এর ভিত গত ২ বছর অনেক কষ্ট করে তৈরি করেছি। অনেক ফালতু কথা শুনেছি, ভেজাল পার হয়েছি। তবুও স্বপ্ন দেখেছি আমরা, তবে চেষ্টা করে গেছি, লেগে থেকেছি।
আজ ই-ক্যাবের সুনাম চারিদিকে। মিডিয়াতে ই-ক্যাবকে খুব শীঘ্রই দেখতে পারবো আমরা। ট্রেনিং, বিশ্ববিদ্যালয় কোর্স, গবেষণা, মিডিয়াতে নিয়মিত রিপোর্ট- সব কিছুই হবে একে একে ইনশাল্লাহ। এজন্য আমরা অনেক কষ্ট করেছি অনেকে মিলে।
আপনাদের ধন্যবাদ যে অনেক বাধা আর নোংরা আক্রমণের মধ্যেও ই-ক্যাবের সঙ্গে ছিলেন, ই-ক্যাবের সুনামকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন। আপনারা অনেকে ছিলেন বলেই হয়েছে এবং সামনে আরও হবে। তাই অনুরোধ একটাই, সঙ্গে থাকুন এবং চলুন ২০১৭ সালকে ই-ক্যাবের জয় যাত্রার বছরে পরিণত করি।

আসল আলিবাবা বনাম নকল আলিবাবা