২০১৫ সালের পুরোটা জুড়ে ই-কমার্স নিয়ে প্রতিদিন স্কাইপে আড্ডা দিয়েছি। এখন গত ১৩ দিন ধরে স্কাইপে ইংরেজি শেখা নিয়ে আড্ডা দিচ্ছি। বেশ মজার একটা জিনিস লক্ষ্য করলাম। ই-কমার্স এখনো ঢাকা কেন্দ্রিক এবং যারা স্কাইপে আড্ডা দিত তাদের ৮০% হয় ঢাকার নাহয় চট্টগ্রাম অথবা প্রবাসে থাকে। ইংরেজি চর্চা করতে যারা আসে তাদের একটা বড় অংশ ফ্রিল্যান্সার বা ফ্রিল্যান্সার হতে চায়। এবং তাদের অনেকেই ঢাকার বাইরে ছোট ছোট জেলা বা এমনকি উপজেলা শহর বা গ্রাম থেকেও যোগ দিচ্ছে।

ঢাকার বাইরে টাকা দিয়েও ইংরেজি শেখার বা চর্চা করার ভাল কোন সুযোগ নেই। তাই আমাদের ইংরেজি গ্রুপ ও স্কাইপ আড্ডা খুব অল্প সময়ের মধ্যে জনপ্রিয় হচ্ছে এবং অনেক তরুনকে পাচ্ছি। ১ এপ্রিল থেকে ইংরেজিতে লেখা নিয়ে চর্চা শুরু হবে।

মিঠু কামাল ভাই, শাকিল ভাইদের নিয়ে আমি মনে হয় তাদের থেকেও বেশি স্বপ্ন দেখি। তবে খুব ভাল লাগে ঢাকার বাইরের ছোট শহর বা গ্রামের কেউ যোগ দিলে। তাদের একটু একটু এগিয়ে যাওয়া দেখতে ভাল লাগে। স্বপ্ন ছিল ফুটবল কোচ বা ম্যানেজার হবার।

নিজের শিক্ষাগত ব্যাকগ্রাউন্ড (ELT or English language teaching), ইন্টারনেটের সঙ্গে ১৪ বছরের অভিজ্ঞতা আর সর্বোপরি ই-কমার্স, ফেইসবুক ও স্কাইপের অভিজ্ঞতাকে এক সঙ্গে মিশিয়ে এমন কিছু করছি যা আমি যেমন খুব উপভোগ করছি আর যারা আমার সঙ্গে ইংরেজি গ্রুপে, স্কাইপে এবং ইংলিশ ব্লগে আছে সবাই মজা পাচ্ছে।

৫ ঘণ্টা ধরে ইংরেজিতে সবাই কথা বলছে, লিখছে। খুব ইচ্ছা সামনে একদিন আমরা ২৪ ঘণ্টা টানা ইংরেজিতে আড্ডা দেব, লিখবো, পড়বো।

ইংরেজি শেখার বা চর্চা করার ভাল কোন সুযোগ নেই