ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর বয়স ৭৫ দিন

আমার খুবই প্রিয় একটা কবিতা- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা। সেই ১৯৮৯ সাল থেকে কত বার যে আবৃত্তি করেছি নিজে নিজে। সুখ আর দুঃখ মিলিয়েই জীবন। আমার নিজের জীবন অনেক সংগ্রামে, ব্যর্থতায় ও ভেজালে ভরা। ২০১৫ সালে এসে জীবন অনেক ভাল হচ্ছে এবং সামনের দিন গুলো ভাল থেকে আরও ভাল হবে বলে আশা করি।
ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর বয়স ৭৫ দিন হয়ে গেছে এবং মাত্র ৭৫ দিনে আমরা অনেক এগিয়েছে। অনেক মানুষের থেকে সন্মান, শ্রদ্ধা আর স্নেহ পেয়েছি। কিছু মানুষ ভেজাল করেছে বা করার চেষ্টা করেছে। তাদের সংখ্যা এত কম যে তা নিয়ে এখন আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই। বরং যারা আমাকে সন্মান, শ্রদ্ধা আর স্নেহ করেছেন তাদের এই ভালবাসার টানে, প্রভাবে আমার নিজের জীবনের যত তিক্ততা, ব্যথা, কষ্ট, হতাশা, দুঃখ, বেদনা সব কেটে গেছে। আমার প্রতি, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর প্রতি অনেকের মনে অনেক শুভ কামনা আমার হৃদয়কে গভীরভাবে প্রতিদিনই স্পর্শ করে।
অনেকেই আমাকে প্রশ্ন করেন যে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর জন্য জান প্রান দিয়ে দিনে ১৫-১৬ ঘণ্টা খেটে আমার কি লাভ? দিনে ১০ ঘণ্টা নিজের জন্য শ্রম দিলে তো অনেক লাভ হতো আমার। অনেকের থেকে সন্মান পেয়েছি- অবশ্যই এটা একটা বড় লাভ। তোষামোদি আর শ্রদ্ধার মধ্যে পার্থক্য অন্তত এ বয়সে এসে শিখেছি। আসলে তোষামোদি হয়তো আপনার মনে আনন্দ এনে দিতে পারে কিন্তু সুখ আর তৃপ্তি নয়। তাই ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর মাধ্যমে আমার জীবনে কষ্ট ও বেদনা চলে গিয়ে সুখ এসেছে অনেক মানুষের থেকে ইতিবাচক সাড়া পাওয়ার মাধ্যমে। এটাই জীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া।
অন্য ৮-১০ জনের মতই আমার নিজের জীবনে উচ্চাকাঙ্ক্ষা রয়েছে, স্বপ্ন রয়েছে ভাল কিছু করার, বড় হবার এবং এজন্য আমি গড়পড়তা মানুষের থেকে বেশি কাজ করার চেষ্টা করি। হয়তো এক সময় কিছু একটাতে বিশ্ব মাপের না হতে পারি এ দেশের অন্যতম সেরা কেউ হবো। কিন্তু এখন আমি উপলব্ধি করেছি যে এর মাধ্যমে টাকা, খ্যাতি, মর্যাদা, সমীহ অনেক কিছুই আসতে পারে কিন্তু তৃপ্তি, সুখ, শান্তি এগুলো আসবে না। সত্যিকারের সন্মান আসে অন্যদের থেকে শ্রদ্ধা, সন্মান, বন্ধুত্ব আর ভালবাসা পাওয়াতে।
যারা আমাকে চেনেন, জানেন তাদের ধন্যবাদ জানাই। যারা আমাকে চেনেনা, জীবনে দেখেননি কিন্তু ফেইসবুকের মাধ্যমে চেনেন আমাকে পছন্দ করেন, আমার ভাল চান তাদেরও অসংখ্য ধন্যবাদ। ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর সভাপতি হিসেবে আমাকে অনেক বড় কিছু প্রতিবন্ধকতা, ঝামেলা, অপমান পার হতে হয়েছে। কিন্তু ৭৫ দিন পর সেই কষ্ট, বেদনা, ঝামেলা, অপমান এগুলো আর আমাকে স্পর্শ করেনা- বরং সবার ভালবাসা আমাকে অনেক সুখী করে।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই কবিতাঃ
যা – কিছু পেয়েছি , যাহা – কিছু গেল চুকে ,
চলিতে চলিতে পিছে যা রহিল পড়ে ,
যে মণি দুলিল যে ব্যথা বিঁধিল বুকে ,
ছায়া হয়ে যাহা মিলায় দিগন্তরে—
জীবনের ধন কিছুই যাবে না ফেলা—
ধুলায় তাদের যত হোক অবহেলা—
পূর্ণের পদ – পরশ তাদের’পরে ।
Razib Ahmed
24 January 2015

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *