আজকে আমার ফেইসবুক টাইম লাইন ঘেঁটে দেখলাম যে টানা দু মাস ধরে নিজের টাইমলাইনে ই-কমার্স নিয়ে পোস্ট দিয়ে গেছি বিরামহীন ভাবে। হয়তো দরকার ছিল মানুষকে জানানোর। তবে এখন থেকে চেষ্টা করবো ই-কমার্স নিয়ে পোস্ট গুলো আমাদের ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর ফেইসবুক গ্রুপে পোস্ট করার। হয়তো এ নিয়ম রক্ষা করতে পারবো না সব সময় তবে পালন করার চেষ্টা করবো। কাজ করতে সব সময়ই ভাল লাগে। ১৯৯৯ সালের ১ জানুয়ারি থেকে পেশাদার জীবনে পা রেখেছি। সে হিসেবে ১৬ বছর শেষ হয়ে গেছে কর্মজীবনের। খুব আহামরি কিছু করতে পেরেছি তাও নয় আবার ব্যর্থও হইনি বলা চলে।
অবশ্য ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশান এর সভাপতি এর পদটি কোন চাকুরী বা ব্যবসার পদ নয়। সম্পূর্ণ ভলেন্টারি বা স্বেচ্ছাসেবা ধরনের কাজ ও পদ যা থেকে এক টাকাও আয় হয়না। নিজের কাজকর্ম ব্যবসা-বানিজ্য সব বাদ দিয়ে ডাবল ফুল টাইম খাটছি কেন এ নিয়ে অনেকের মনেই কৌতূহল। সপ্তাহে ১০০ ঘণ্টার কাছাকাছি মনে হয় এ কাজে লেগে আছি। অনেক ধরনের কাজ করছি- মিটিং, লেখালেখি, ফেইসবুক গ্রুপ ও পেইজ এবং ব্লগ চালানো, গড়ে প্রায় ২০ জনের সঙ্গে প্রতিদিন কথা বলা, ই-কমার্স নিয়ে লেখাপড়া এবং এ নিয়ে খবর পড়া (ধন্যবাদ গুগল নিউজ), ই-ক্যাব এর সেক্রেটারিয়েটকে সাহায্য করা ও ভলেন্টিয়ারদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা ও তাদের কাজের সমন্বয় করা। মাঝে মধ্যে সাংবাদিকরা ফোন করেন এবং তাদের তথ্য ও প্রশ্নের উত্তর দেবার চেষ্টা করি।
অনেকেই জানতে চান এভাবে পাগলের মত চেষ্টা করে আমার কি লাভ বা আমার কোন গোপন ধান্দা আছে কিনা? সেই অর্থে আমার কোন বিশেষ উদ্দেশ্য বা লাভ নেই আর গোপন কোন ধান্দা থাকলে তা বাস্তবায়নের জন্য এত কষ্ট করা লাগতো না বলেই মনে হয়। আমার মনে রাজনৈতিক বা নেতাগিরির উচ্চাভিলাষ কখনোই ছিল না এখনো নেই। নেতাগিরির দৌড় স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস ক্যাপ্টেন বা রিপ্রেজেন্টেটিভ পর্যন্তই সীমাবদ্ধ ছিল। বরং ই-ক্যাব যখন দাড়িয়ে যাবে তখন সভাপতির পদ থেকে সরে দাড়াতে পারলেই খুশী হব। এক টার্মের বেশি সভাপতি থাকবো না এ ব্যপারে আমি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ অন্তত নিজের কাছে।
তবে এত কষ্ট করে একটা লাভ আমার হয়েছে ইতিমধ্যেই- একদিকে ফোকাস বা মনোযোগ দিতে পারা। জীবনে এটা আমি কখনোই করতে পারিনি এবং এ বয়সে এসে এটি করতে পারবো সে আশাও ছিল না। কিন্তু সেই অসম্ভব কাজটিই হয়ে গেছে এবং অনেকটা বিনা চেষ্টাতেই ঘটেছে। পড়তে ভালবাসি, কাজ করতে ভালবাসি, জানতে ও শিখতে ভালবাসি কিন্তু সবসময় আমার মন ৩-৪ ভাগে বিভক্ত ছিল। নতুন কোন আইডিয়া পেলে পুরনো কাজকে বাদ দিয়ে সেটা নিয়ে মেতে উঠতাম। আবার একই সময়ে ৩-৪ ধরনের কাজ নিয়ে মেতে থাকতাম।
আরেকটা লাভ হয়েছে আমার। অনেকের সঙ্গেই পরিচয় ঘটেছে। অনেক সন্মান পেয়েছি অনেকের থেকে গত দেড় দুই মাসে। আর সবচেয়ে বড় যে লাভ হয়েছে তাহল ই-কমার্স নিয়ে আমরা ই-ক্যাব থেকে ফেইসবুক গ্রুপ ও ব্লগের মাধ্যমে অনেক তথ্য দিতে পেরেছি। এর কৃতিত্ব কোন ভাবেই আমার নয়। যারা পোস্ট দিয়েছেন, পরামর্শ ও প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তাদের।
আর আমার ফ্রেন্ড লিস্টে গত দুইমাসে প্রায় ৭০০ জন এড হয়েছেন। এখন দেখলাম মোট ৭৭৭ জন। সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
December 2014

ই-কমার্স নিয়ে পোস্ট দিয়ে গেছি বিরামহীন ভাবে