আমাকে অনেকেই জিজ্ঞেস করেন যে কমেন্ট লেখার ব্যপারে কেন আমি এত গুরুত্ব দেই। কেন প্রতিদিন ঘুরিয়ে ফিরিয়ে একই কথা বলি? আসলেই কি কোন লাভ আছে? হ্যাঁ, অনেক লাভ আছে।
১। কমেন্ট লেখার মাধ্যমে ইংরেজি চর্চা হচ্ছে। আপনার ভয়, লজ্জা আর সংকোচ সব এক মাসের মধ্যে চলে যাবে। পরিক্ষা করে দেখতে পারেন।
২। যখন আপনি কমেন্ট লিখছেন তখন আপনাকে পোস্ট পড়তে হচ্ছে। সার্চ ইংলিশ গ্রুপের সব পোস্ট ইংরেজিতে এবং তাই অনেক কিছু পড়া হয়ে যাচ্ছে, জানা হয়ে যাচ্ছে। কমেন্ট হোক, পোস্ট হোক, প্যারাগ্রাফ হোক, রচনা বা এসে হোক বা আর্টিকেল হোক যাই লিখুন না কেন তা লিখতে হলে কিন্তু আপনার তথ্য লাগে, জ্ঞান লাগে। অন্যদের পোস্ট থেকে আপনি সহজেই পেয়ে যাচ্ছেন।
৩। আমাদের দেশে আমরা ইংরেজি ভাষার সংস্পর্শে খুব একটা থাকি না। কিন্তু এখানে পোস্ট পড়ে কমেন্ট করতে গিয়ে আমরা তা করছি নিজের অজান্তে। হ্যাঁ, বলতে পারেন যে সবার পোষ্টে অনেক ভুল আছে। কিন্তু মজার ব্যপার কি জানেন, এই ভুলে ভরা পোস্ট গুলো পড়তে মজা লাগে, তাই না?
বিবিসি ওয়েবসাইটের নিউজ পড়ার থেকেও পার্থ ভাইয়ের আলিয়া ভাট নিয়ে পোস্ট পড়তে মজা লাগে। সকাল শুরু হয় ফারহানা আশা আপুর পোস্ট দিয়ে। আর ইদানিং আমার পোস্ট গুলো লাইক কমেন্টে ভরপুর। বিবিসি, সিএনএন, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইটের লেখা কিন্তু বিনা পয়সাতেই পাওয়া যায়। তারপরও আমাদের এই সার্চ ইংলিশের পোস্ট গুলো ভাল লাগে, তাই না?
৪। এক মাস সব পোষ্টে কমেন্ট করলে উন্নতি হবেই এবং পার্থ ভাই ও সুমন মল্লিক ভাই সেরা উদাহরণ।
শেষ কথা হল, আপনি গ্রামার, ভোকাবুলারি, ইংলিশ রাইটিং যেদিকেই দক্ষ হতে চান না কেন আগে দরকার অনেক প্র্যাকটিস এবং কমেন্ট লেখাই আসলে সেরা প্র্যাকটিস কারন করতে মজা এবং কোন কষ্ট নেই। আপনি বুঝবেনও না যে আপনি আসলে ইংরেজি চর্চা করছেন, ইংরেজি ভাষার সংস্পর্শে আছেন।
এই পোষ্টে সবাই চেষ্টা করুন ৫০ থেকে ১০০ শব্দের কমেন্ট করতে। না পারার কিছু নেই। চেষ্টা করুন।

কমেন্ট লিখে কি লাভ?