কাজ করতে কারো ভাল লাগে না কিন্তু খেলা, আমার এবং বিনোদন সবার ভাল লাগে। তাই আমরা ক্লাস ফাকি দিয়ে সিনেমা বা খেলা দেখতে চলে যেতে পছন্দ করি। খেলা বা সিনেমা বাদ দিয়ে পড়তে বসতে পছন্দ করি না। আসলে এজন্য আমরা ইংরেজিতে খুব বেশি আগাতে পারি না। ইংরেজিকে সবাই পরিক্ষা পাসের বিষয় মনে করি এবং এটিকে ভয়ংকর কাজের তালিকায় ১ নম্বরে রাখতে পছন্দ করি।
সবচেয়ে বেশি ছাত্র পরিক্ষাতে ইংরেজিতে ফেল করে- যে ধরনের পরিক্ষা হোক না কেন। চাকুরির পরিক্ষাতে সবাই ইংরেজিকে সবচেয়ে ভয় করে। তাই ১২ বছর বা এমনকি ১৬ বছর ইংরেজি পড়েও আমরা ১০০ শব্দ ঠিক মত লিখতে পারি না। এক মাস আগে যখন কমেন্ট করার কথা বলা শুরু করি তখন বেশির ভাগ মানুষ এটিকে আসলে কাজের মধ্যে নিয়েছিলেন। কিন্তু যারা চেষ্টা করা শুরু করেন তাদের জন্য এটি খেলা হয়ে যায়।
তাই আজ রিমা আপু এবং জাহিদ ভাই ৫০ টি কমেন্ট লিখতে পেরেছেন বিকেল ৪ টার মধ্যে। তারা ইংরেজিতে কমেন্ট লিখতে ভয় পান না। তারা কিন্তু শুধু ৫০ টি পোস্টে কমেন্ট লিখেন নি, একই সঙ্গে তারা ৫০ টি পোস্ট পড়েছেন, তা নিয়ে চিন্তা করেছেন, নতুন কিছু জেনেছেন এবং তারপর লিখেছেন। তাদের গতি অনেক বেড়ে গেছে কারণ অনেকে এখনো দিনে ১০ টি কমেন্ট লেখার কথা চিন্তা করতে পারেন না।
তারা যা করতে পেরেছেন এটি তাদের সম্পদ। এজন্য আমাদের কোন টাকা দিতে হবে না বা আগামীকাল এই সার্চ ইংলিশ ছেড়ে চলে গেলে তাদের এই দক্ষতা আমাদের কাছে জমা দিয়ে তারপর যেতে পারবেন। তারা যা পেরেছেন তা তাদের সারাজীবনের সম্পদ হয়ে থাকবে। বিশেষ করে পরিক্ষার হলে এখন রিমা আপু অনেক দ্রুত ইংরেজিতে লিখতে পারবেন। ফলে এখন থেকে জীবনে অন্তত এই একটি দিকে এগিয়ে গেলেন তিনি।
আর কন্টেন্ট লেখার ক্ষেত্রে জাহিদ ভাই এখন অনেক দ্রুত গতিতে করতে পারবেন। গতির সঙ্গে আরেকটি ব্যপারে উন্নতি হচ্ছে তাদের- ইংরেজি পড়ে বোঝার ক্ষমতা।
তাই সবার প্রতি অনুরোধ সার্চ ইংলিশ গ্রুপকে কাজ হিসেবে নেবেন না, ভয় পাবেন না। খেলা হিসেবে নিতে শিখুন। তাহলে অনেক দ্রুত এগুতে পারবেন।
প্রতিটি পোস্টে মাত্র এক বাক্যের কমেন্ট দিয়ে শুরু করুন। ১০ দিনে যে উন্নতি হবে তাতে কিছু না হলেও গতি এবং বোঝার ক্ষমতা বাড়বে এবং সবচেয়ে বাড়বে আত্মবিশ্বাস।

৮ ঘণ্টা কাজ কিংবা খেলা