Non-Fiction : Of Studies (essay)
written by : Francis Bacon

অধ্যয়ন এমন এক ধরণের কাজ , যা আমাদেরকে আনন্দ দেয় । চিন্তায় , কথাতে , লেখাতে উৎকর্ষতা প্রদান করে , আমাদের ব্যাক্তিত্বের মাধুর্যতা আরও বাড়িয়ে দেয় । অধ্যয়নে এক ধরণের আনন্দ অনুভূতি জন্ম দেয় ,যার ক্রিয়া সবার অগোচরে ঘটে থাকে । শুধু মাত্র পাঠক এই রস নীরবে নিভৃতে আস্বাদন করতে পারে । অন্য কারোর প্রবেশের অনুমোদন নেই সেই জায়গায় । অধ্যয়ন কর্মব্যস্ততার পরিবেশ থেকে এক অনাবিল প্রশান্তির সাগরে নিয়ে যায় । আমাদের চিন্তা বুদ্ধিকে আরও শানিত করে তোলে । এই অধ্যয়ন আমাদের দৈনন্দিন কাজ কর্মের সক্ষমতা আরও বাড়িয়ে দেয় । অধ্যয়ন করতে করতে মানুষ অভিজ্ঞ হয় । একটির পর একটির বিষয় নিয়ে চিন্তা ভাবনা করে , তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে সিদ্ধান্ত নিতে পারে । কোন ধরণের যুক্তিতর্ক , বা কোন মতের বিরুদ্ধেও নিজেদের মত উপস্থাপন করতে পারে । এই ধরণের বুদ্ধিমান বিচার বিশ্লেষণ সঠিক বিচার করার ক্ষমতাকে আরও বাড়িয়ে দেয় । অধ্যয়নের পিছনে বেশি সময় ব্যয় করলে আলসে হয়ে যায় । অধ্যয়নরত ব্যাক্তির উন্নত চিন্তা ধারা সাধারণ জায়গায় উন্মেশ ঘটলে তা দাম্ভিকতার পর্যায়ে চলে যায় । শুধুমাত্র নীতি শাস্ত্র দ্বারা কোন পরিবেশকে বিচার করা হলে পরে প্রহশনের মুখে পড়তে হয় । অধ্যয়ন আমাদের স্বভাব চরিত্রকে জ্ঞান দ্বারা পুষ্টি প্রদান করে । আর অভিজ্ঞতা সে জ্ঞানকে আরও শানিত করে তোলে । মানুষের গুন , ক্ষমতা জন্মগত ভাবেই প্রাপ্ত , কিন্তু তা সুপ্ত থাকে । অধ্যয়ন এবং অভিজ্ঞতার মিশ্রনে ব্যক্তি সামনের দিকে যায় , স্বাধীন হয় । কিন্তু অভিজ্ঞতা ছাড়া , বা অনুমান নির্ভর জ্ঞান দ্বারা মানুষকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে না । ফলে তারা আবদ্ধ হয়ে পড়ে । ফন্দিবাজ লোকদের কাছে পড়াশুনার কোন দাম নেই । সাধারণ মানুষরা পড়াশুনা ব্যাপারটা অনেক শ্রদ্ধার চোখে দেখে , জ্ঞানী মানুষরা যা শিখে তা জীবনে প্রয়োগ করে । —— অধ্যয়নের লক্ষ্য কোন কিছুর বিরুদ্ধে প্রমান করা নয় , কোন কিছু বিশ্বাস বা মেনে নেয়াও নয় । এমনকি কোন কিছুর বিষয়ে এক বিচারে তর্ক বা আলোচনাও নয় । এর লক্ষ্য হওয়া উচিত কোন বিষয় সম্পর্কে অবগত করানো ,তা যুক্তিযুক্তভাবে বিশ্লেষনধর্মী বিচার বিশ্লেষণ করা । কিছু বই আনন্দ দেয় , কিছু বই পড়লে কখন যে সময় পার হয়ে যায় , তা খেয়ালই থাকে না । আবার কিছু বই আছে তাড়াতাড়ি করে কিছু পাতা উলটিয়ে শেষ করে ফেলা যায় । কোন কোন বইয়ের পাতা আস্তে আস্তে অর্থ বুঝে বুঝে পড়তে হয় । কেউ কেউ বই বুঝার জন্য কারোর সাহায্য নিতে পারে , তাদের কাছ থেকে সারমর্ম বুঝেতে পারে । কিন্তু এটি সব ক্ষেত্রে হওয়া উচিত নয় । আর কিছু কিছু বইয়ের সাথে সারমর্ম এক সাথে সাজিয়ে দেয়া আছে । অধ্যয়ন কোন মানুষকে পূর্ণতা প্রদান করে । কোন একটি বিষয় সম্পর্কে আলোচনা ব্যাক্তিকে ব্যবহারিক দক্ষতা প্রদান করে , আর লেখা ব্যাক্তির সব ধরণের দুর্বলতা , অজ্ঞতা দূর করে দিয়ে নিখুঁত করে তোলে । লেখা কোন বিষয়কে মনে রাখতে সহায়তা করে । যদি কেউ পড়ার বিষয় নিয়ে কারোর সাথে আলোচনা না করে , তার বুদ্ধির বিকাশ হবে না , যদি না পড়ে , তাহলে তার পরিবর্তন হবে না , যেমন আছে , তেমনই থেকে যাবে । ইতিহাস মানুষকে জ্ঞানী করে তোলে , কবিতা রসিক করে তোলে । গনিত যুক্তিবাদি করে তোলে । আর দর্শন মানুষকে জীবন সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করে । অধ্যয়ন মানুষের বুদ্ধি স্বভাবে প্রভাব ফেলে । বুদ্ধি ঈশ্বরপ্রদত্ত উপহার । সবার কাছে তা আছে । কিন্ত নির্বাচিত কিছু বিষয়ের উপর পড়াশুনা করলে সেই বিষয়ে জ্ঞান বাড়ে । যেমন কোন রোগের জন্য নির্ধারিত ব্যায়াম করলে সেই রোগ সেরে যায় । যদি কোন মানুষের মন চঞ্চল হয় , তাকে গনিত করতে দিন । যদি তার মন একটু এদিক সেদিক হয় তাহলে অঙ্ক ভুল হবে । তাকে আবার চেষ্টা করতে হবে । এইভাবে আস্তে আস্তে তাকে মনোযোগী করে তুলবে । কোন মানুষ যদি পার্থক্য বুঝতে না পারে , তাহলে তাকে বাচ্চাদেরকে শিখাতে দিন । তাহলে তাদের মানসিক বিকাশের সাথে সাথে কথা বলার ভঙ্গিও সুন্দর হবে । যদি কোন মানুষ কোন কথা বুঝতে না পারে বা বুঝিয়ে না বলতে পারে , তাহলে আইনশাস্ত্র উপকারে আসবে । এইভাবেই ঠিক মতন শিক্ষার ফলে মনের ত্রুটি সহজেই দূর হয়ে হাবে ।

translated from : http://www.bartleby.com/3/1/50.html

আরও গল্প পড়তে ক্লিক করুনঃ

প্রথম স্কুলে যাবার দিনঃ ছোট গল্প-by Razib Ahmed

Shooting an Elephant  

The Most Dangerous Game

A Double-Dyed Deceiver 

HEARTACHE

The Luncheon

The Gift of Magi

A MOTHER IN MANNVILLE

Of Studies by Francis Bacon: Translation in Bangla